Breaking News

Sunday, 27 January 2019

সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে গরু বের করতে গিয়ে বের হলো মানুষের মৃতদেহ


আজকে সকালে স্থানীয় বাসিন্দারা দেখে একটি গরুকে পড়ে থাকতে সেপটিক ট্যাংকের মধ্যে। স্থানীয় বাসিন্দারা গরুটিকে উদ্ধার করার জন্য তাড়াতাড়ি হাত লাগায়। তারপরেই মৃতদেহ দেখে স্থানীয় বাসিন্দাদের চক্ষু চড়কগাছ।

ঘটনাটি সিউড়ি পৌরসভার সুইপার কোয়ার্টারের পিছনে। স্থানীয় বাসিন্দারা সিপটিক ট্যাঙ্ক থেকে গরুটিকে উদ্ধার করার সময় দেখেন ওখানে পড়ে রয়েছে আরও একটি মৃতদেহ। তারপর স্থানীয় বাসিন্দারা সিউড়ি থানার পুলিশকে খবর দেয় এবং পুলিশ এসে মৃতদেহটি উদ্ধার করে।


ওখানকার বাসিন্দাদের বক্তব্য অনুযায়ী আজকে সকাল বেলা একটি গরু সেপটিক ট্যাংকের দিকে যাওয়ার সময় পা পিছলে পড়ে যায়। গরুটির আওয়াজ শুনে সেখানে স্থানীয় বাসিন্দারা পৌঁছতেই এমন ঘটনা চোখে পড়ে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, যে সেপটিক ট্যাংকটি থেকে মৃতদেহটি পাওয়া গেছে সেই সেপটিক ট্যাংকের মুখ দেখে মনে হয় দীর্ঘ দিন ধরে খোলা অবস্থায় ছিল এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্যও তাই। প্রাথমিক অনুমান এই দুর্ঘটনার জন্য দায়ী সেপটিক ট্যাংকের উপরে ঢাকনাটি ভগ্নপ্রায় অবস্থার।

এখনো পর্যন্ত জানা যায়নি সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার হওয়া মৃতদেহটি কতদিন আগের। তবে মৃতদেহটি দেখে অনুমান করা যায় যে দেহটি ওই অবস্থায় ওখানে অনেকদিন ধরেই পড়েছিল।

পুলিশ এসে মৃতদেহটিকে উদ্ধার করে এবং ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয় সিউড়ি সুপার স্পেসিলাটি হাসপাতালে। স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধি কথায়, “একটি গরু আজ সকালে ওই জায়গায় পরে যায়। গরুটিকে উদ্ধার করার সময় এক ব্যক্তির মৃতদেহ চোখে পড়ে। এরপর থানায় পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। তবে ব্যক্তির পরিচয় এখনো অব্দি পাওয়া যায়নি।”

ঘটনাটির পর ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় এলাকায়। কিন্তু প্রশ্ন হলো মৃতদেহ আলো কি ভাবে সেপ্টিক ট্যাংকের ভিতরে?কেউ কি খুন করে ফেলে গেছে? না ওই ব্যক্তি কোনো ভাবে পরে গেছে। তবে এমন ঘটনাটি কিভাবে ঘটলো এবং দেহটি স্থানীয় কোন ব্যক্তির হতে পারে সে বিষয়ে সিউড়ি থানার পুলিশতদন্তে নেমেছে ।

No comments:

Post a Comment