Breaking News

Friday, 25 January 2019

PTTI এর জট কাটল,সুপ্রিম কোর্টে বড় জয় প্রাথমিক শিক্ষকদের

দীর্ঘ আইনি জট কাটিয়ে সুপ্রিম কোর্টে PTTI মামলায় বড় জয় পেলেন প্রাথমিক শিক্ষকদের একাংশ৷ আজ, দেশের শীর্ষ আদালতে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ২০০৪-০৫ সালে দেওয়া PTTI শংসাপত্র বৈধ্য৷ ফলে, মামলাকালীদের আগামী মার্চের মধ্যে নিয়োগ করতে হবে বলেও বৃহস্পতিবার সাফ জানিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷



এদিন সুপ্রিম কোর্টের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ২০১০-এর 31 ডিসেম্বরের মধ্যে যারা কোর্টে আবেদন করেছিলেন তাঁদের নিয়োগপত্র দিতে হবে৷ তাদের শূন্যপদে নিয়োগ করার কথাও জানানো হয়েছে৷ একই সঙ্গে ২০০৯ সালের নিয়োগের পর প্রাইমারি শিক্ষক পদে যারা কর্মরত তাঁদের কারোর চাকরি নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না বলেও সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে৷

আদালত সূত্রে খবর, PTTI ২০০৪-২০০৫  পাশ করা প্রার্থীদের ২০০৬-এ প্রশিক্ষণের জন্য ডাকে এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জ৷ কিন্তু ২০০৯ সালে নিয়োগের সময় ২০০৪-০৫ বর্ষের পিটিটিআই পড়ুয়াদের দেওয়া শংসাপত্রকে কাউন্সিল মান্যতা দেয়নি ৷ এরপরই মামলা করা হয় আদালতে৷ টানা দীর্ঘ মামলা চলার পর আজ এই নির্দেশ দেয় দেশের শীর্ষ আদালত৷

২০০৬ সালে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগের  তৎকালীন রাজ্য সরকার৷ পরীক্ষার পর, ২০০৯ সালে প্যানেল তৈরি হয়। ২০১০ সালে চাকরীপ্রার্থীদের                             নিয়োগপত্র দেওয়া হয়৷ ২০১১ সালে নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট, ১৯৯৫-৯৬ থেকে ২০০৪-০৫ শিক্ষাবর্ষের মধ্যে যে সমস্ত ছাত্রছাত্রী পিটিটিআই-এর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন তাঁদের প্রত্যেককে অতিরিক্ত ২২ নম্বর দিতে হবে নিয়োগের সময়  ৷ কিন্তু PTTI প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ছাত্রছাত্রীদের অভিযোগ, দেওয়া হচ্ছিল না তাদের এই নম্বর এবং প্যানেল বাতিলের দাবিতে ২০১২ সালে কোর্টের দ্বারস্থ হন কয়েকজন পিটিটিআই প্রশিক্ষিত চাকরীপ্রার্থী৷

No comments:

Post a Comment