Breaking News

Saturday, 23 February 2019

রবিবার রাত থেকে পরের তিনদিন ঝড় শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনা সমগ্র দক্ষিণবঙ্গে।


গত দুই তিন দিন থেকেই তাপমাত্রার হেরফের হচ্ছে  দক্ষিণবঙ্গে।দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩-৩৪ ছুঁয়ে ফেলেছে অর্থাৎ  গরম পড়ার ইঙ্গিত দিতে শুরু করে দিয়েছে আবহাওয়া। অনেকে আবার গরম এড়াতে  ফ্যান চালাতে শুরু করেছেন।

গত কয়েক দিন ধরে ঠিক এ রকম আবহাওয়াই চলছে, ছোটোনাগপুর মালভূমি অঞ্চলে। পাশাপাশি এখন দখিনা হাওয়া বইতে শুরু করে দিয়েছে। ফলে বঙ্গোপসাগর থেকে জলীয় বাষ্প ঢুকছে ছোটোনাগপুর মালভূমির দিকে।

তবে এই দরদরে গরম আবহাওয়া বদলে যাবে রবিবার রাত থেকে । রবিবার থেকে বুধবার পর্যন্ত জোর ঝড়বৃষ্টি হতে পারে সমগ্র দক্ষিণবঙ্গে । কোনো কোনো  জায়গায় শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে বলে জানিয়েছে  বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা।ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকে কালবৈশাখীর মরশুম শুরু হয়ে যাবে দক্ষিণবঙ্গে বলে জানিয়েছেন বেশ কিছু বিদেশি আবহাওয়া সংস্থা। তবে ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গােয়েঙ্কা মনে করেন , মূলত পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতেই কালবৈশাখী সীমাবদ্ধ থাকবে । কলকাতায় ঝড়াে হাওয়ার সঙ্গে ভালাে বৃষ্টি হলেও , কালবৈশাখীর সম্ভাবনা নেই ।

ওয়েদার আল্টিমা জানিয়েছে, বীরভূম, মুর্শিদাবাদেই শিলাবৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা সব থেকে বেশি। তাছাড়া রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চল এবং মধ্যাঞ্চল, অর্থাৎ দুই বর্ধমান, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম,  কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বৃষ্টির সঙ্গে শিল পড়ার সম্ভাবনা খুব একটা নেই। পাশাপাশি ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা এবং বাংলাদেশে ব্যাপক শিলাবৃষ্টি হতে পারে। শিলাবৃষ্টির প্রভাবে চাষে ক্ষয়ক্ষতিরও আশঙ্কাও রয়েছে।

এরই মধ্যে ভারী বৃষ্টিরও সতর্কবার্তা দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। তারা জানিয়েছে, বুধবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত অঞ্চলে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। ভারী বৃষ্টি হতে পারে ঝাড়খণ্ডেও।





No comments:

Post a Comment